আমি স্বেচ্ছাসেবক ‘কিভাবে সাহায্য করতে পারি’

বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১ | 137 বার

আমি স্বেচ্ছাসেবক ‘কিভাবে সাহায্য করতে পারি’
আমি স্বেচ্ছাসেবক ‘কিভাবে সাহায্য করতে পারি’

বিভিন্ন সমাজসেবী সংগঠনের মত নয় একটু ভিন্ন ভাবে বৃহন্নলা ১৫ জনের একটি দল নিয়ে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটির যাত্রা শুরু । দলের পনের জন সদস‌্যের মধ‌্যে আটজনই তৃতীয় লিঙ্গের। সবার শরীরে কমলা জ্যাকেট। হাতে প্ল্যাকার্ড। সেখানে লেখা—‘আমি স্বেচ্ছাসেবক, কিভাবে সাহায্য করতে পারি?’ বিভিন্ন হাসপাতালের সামনে তাঁরা থাকেন রোগীর অপেক্ষায়।

যখনই কোনো অ্যাম্বুল্যান্স বা সিএনজি চালিত অটোরিকশা হাসপাতালের সামনে এসে দাঁড়ায়, সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা এগিয়ে যান। রোগীর মালপত্র গাড়ি থেকে নামিয়ে হাসপাতালের ভেতরে দিয়ে আসা, রোগীকে গাড়ি থেকে নামাতে সাহায়তা করা, হাসপাতাল থেকে যেসব রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরছে তাদের মালপত্র গাড়িতে উঠিয়ে দেওয়া—এ সবই তাঁদের স্বেচ্ছাসেবী কাজ।

dhakarkagoj.com

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের সামনে কথা হয় ওই স্বেচ্ছাসেবী দলের মুখপাত্রকক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সাদের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘গেল বছরের করোনার অভিজ্ঞতা থেকে আমরা ১৫ জন মিলে একটা দল গঠন করি। অনেক রোগী হাসপাতালে আসেন মাত্র একজন লোক নিয়ে। ফলে তাঁর একার পক্ষে রোগী ও মালপত্র নামানো কষ্টকর হয়ে পড়ে। এ সময় গাড়ি থেকে রোগী নামাতে আমরা সাহায্য করি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা আছে। যদি কেউ যানবাহন না পায়, তাহলে আমরা রোগীকে বাসায় পৌঁছে দিয়ে আসি।’

স্বেচ্ছাসেবী দল পরিচালনা করতে টাকার জোগান কিভাবে হচ্ছে? জানতে চাইলে জবাবে সাদ বলেন, ‘আমাদের ফেসবুক গ্রুপ আছে, সেখান থেকে আমরা টাকা সংগ্রহ করি।’

স্বেচ্ছাসেবী দলের মুখপাত্র সাদের সঙ্গে কথা বলতে বলতে আমাদের সামনে এক সদস্য এসে উপস্থিত হয় যিনি তৃতীয় লিঙ্গের একজন । নাম জানতে চাইলে বললেন তাঁর নাম মুনমুন। বললাম আপনি তো আগে রাস্তায় মানুষের কাছ থেকে টাকা তুলতেন, সে কাজ বাদ দিয়ে হাসপাতালে এসে মানুষের সেবা করছেন, তাও আবার করোনা রোগীর, কেন? জবাবে তিনি বলেন, ‘মানুষ যদি আমাকে সাহায্য করতে পারে, আমি কেন সাহায্য করব না? সরকার তো আমাকে সব রকম সাহায্য করে, আমার তো সরকারকে কিছু দেওয়ার আছে।’

Development by: webnewsdesign.com