ব্রেকিং

x

দক্ষিণ সিটির ৮ ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ১২ স্থাপনাকে সোয়া লাখ টাকা জরিমানা

বুধবার, ১২ জুলাই ২০২৩ | 18 বার

দক্ষিণ সিটির ৮ ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ১২ স্থাপনাকে সোয়া লাখ টাকা জরিমানা
দক্ষিণ সিটির ৮ ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ১২ স্থাপনাকে সোয়া লাখ টাকা জরিমানা

এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ঢাদসিক) পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ১২ স্থাপনাকে সোয়া লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়াও এডিস মশার প্রজননস্থল ধ্বংসে করপোরেশনের আওতাধীন এলাকার ৯৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিশেষ চিরুনি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

আজ বুধবার (১২ জুলাই) করপোরেশনের আওতাধীন পরিবাগ, শাগবাগ, উত্তর মুগদা, দক্ষিণ মুগদা, ঝিগাতলা, বাবুবাজার, দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী, পূর্ব নন্দীপাড়া, পূর্ব শেখদি ও কুতুবখালী এলাকায় এসব অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এক নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মঞ্জুরুল হক ২১ নম্বর ওয়ার্ডের পরিবাগ ও শাহবাগ এলাকায় ৩৫টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করেন এবং এনডিই লিমিটেড কর্তৃক নির্মিত একটি নির্মাণাধীন ভবনে মশার লার্ভা পান। আদালত এ সময় এনডিই লিমিটেডের প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার মামুনুর রশীদকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

দুই নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম আর সেলিম শাহনেওয়াজ ৬ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর মুগদা ও দক্ষিণ মুগদা এলাকায় ৩১টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করেন। আদালত এ সময় কোনো স্থাপনায় মশার লার্ভা পাননি।

তিন নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তায়েব-উর-রহমান ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের ঝিগাতলা এলাকায় ৫২টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করেন। আদালত এ সময় ২টি নির্মাণাধীন ভবনে মশার লার্ভা পাওয়ায় একটি ভবনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার রাসেল আহমেদকে ৫০ হাজার ও আরেকটি ভবনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার সুজনকে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড আরোপ ও জরিমানা আদায় করেন।

চার নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদ রানা ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের বাবুবাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন এবং ২টি স্থাপনায় মশার লার্ভা পান। আদালত এ সময় ১ মামলায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

পাঁচ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সফি উল্লাহ দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী এলাকায় ১৩টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনায় অভিযান পরিচালনা করেন এবং ১টি স্থাপনায় মশার লার্ভা পাওয়ায় ১ মামলায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

ছয় নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহরিয়ার হক ৭৪ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব নন্দীপাড়া এলাকায় ৩৬টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনায় অভিযান পরিচালনা করেন এবং ১টি স্থাপনায় মশার লার্ভা পাওয়ায় ১ মামলায় ২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

নয় নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আমিনুল ইসলাম ৬২ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব শেখদি এলাকায় ৫২টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনায় অভিযান পরিচালনা করেন এবং ৩টি স্থাপনায় মশার লার্ভা পাওয়ায় ৩ মামলায় ১২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

দশ নম্বর অঞ্চলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাহাঙ্গীর আলম ৬১ নম্বর ওয়ার্ডের কুতুবখালী এলাকায় ৩০টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনায় অভিযান পরিচালনা করেন এবং ৩টি স্থাপনায় মশার লার্ভা পাওয়ায় ৩ মামলায় ৪ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

আজকের অভিযানে সর্বমোট ২৬৪টি বাসাবাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করা হয়েছে। এ সময় ১২টি বাসাবাড়ি ও নির্মাণাধীন ভবনে মশার লার্ভা পাওয়ায় ১২ মামলায় সর্বমোট ১ লক্ষ ২৩ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

Development by: webnewsdesign.com