ব্রেকিং

x

দুদকে অভিযোগ প্রমাণিত, তোড়জোড় পদন্নোতি দিতে

রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩ | 39 বার

দুদকে অভিযোগ প্রমাণিত, তোড়জোড় পদন্নোতি দিতে

দু‌র্নীতি দমন ক‌মিশনে (দুদক) অ‌ভি‌যোগ প্রমাণিত হওয়ার পরেও অভিযুক্ত ও সাময়িক বরখাস্ত জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রকৌশলী মোঃ জামানুর রহমানকে স্বপদে ফিরিয়ে আনার পরে এবার পদন্নোতি দেওয়ার জন্য তোড়জোড় শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, পাবনা সুজানগর পৌরসভায় আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানি সরবরাহ ও পানি নিষ্কাশনের জন্য পাইপড ওয়াটার এনভায়রনমেন্টাল স্যানিটেশন প্রকল্পের কাজ শেষ না করে অর্থ আত্মসাৎ এবং অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে তদন্ত কমিটি প্রতিবেদনে প্রমাণিত হওয়ায় স্থানীয় সরকার বিভাগ, পানি সরবরাহ-১ শাখার স্মারক নং ৬৪৪ তারিখ-১৭-১০-২০২২ মাধ্যমে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।

এদিকে গত ১৩ নভেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) প্রতিবেদনেও জামানুর রহমানের দুর্নীতি প্রমাণিত হয়েছে। দুদকের অভিযোগ পত্রের পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, পাবনা জেলার সুজানগর, ভাঙ্গুরা ও চাটমোহর পৌরসভার পাইপড ওয়াটার সাপ্লাই এনভায়রনমেন্টাল স্যানিটেশন প্রকল্পটির কাজ বাস্তবায়নপূর্বক চাটমোহর পৌরসভার কাছে হস্তান্তর করা হয়। তবে উক্ত প্রকল্প বাস্তবায়নের পর থেকে অদ্যাবধি গ্রাহক পর্যায়ে পানি সরবরাহ করা হয়নি ও প্রকল্পটির আওতামুক্ত নলকূপগুলো তালাবদ্ধ ও অকেজো অবস্থায় রয়েছে। যেকারণে বর্ণিত বাস্তবায়িত প্রকল্পটির কার্যকর ব্যবহারে অবহেলা পরিলক্ষিত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণপূর্বক দুর্নীতি দমন কমিশনকে অবহিতকরণের নির্মিত অনুরোধ করা হয়েছে।

এমতাবস্থায়, চাটমোহর পৌরসভার পাইপড ওয়াটার সাপ্লাই এনভায়রনমেন্টাল স্যানিটেশন প্রকল্পটি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়িত। তাই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে বিধিমোতাবেক প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণপূর্বক স্থানীয় সরকার বিভাগে প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবরে গত ৮ সেপ্টেম্বর দাখিলকৃত তিন পৃষ্ঠার অভিযোগে ২০ নম্বর দফায় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, খুলনা সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী জামানুর রহমানের কেলেঙ্কারি উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাই‌লে পা‌নি সরবরাহ অনু‌বিভাগের অ‌তি‌রিক্ত স‌চিব মুস্তাকীম বিল্লাহ ফারু‌কী বলেন, তাকে পদোন্ন‌তির বিষ‌য়ে এখনও কিছু জা‌নি না সেভাবে। য‌দি আমাদের কাছে তার পদোন্নতির কাগজপত্র আসে তখন বলতে পারবো।

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী সরোয়ার হোসেন বলেন, দূর্নীতির অভিযোগে জামানুরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল পরে আবার চাকরিতে বহাল করেছে হয়তো। দুদকের থেকে তার অভিযোগ যদি প্রমাণিত হয়ে থাকে তাহলে দুদক ব্যাবস্থা নিবে। পদন্নোতি নিয়ে তোরজোর করার কিছু নেই। যেটা নিয়ম সেটাই হবে।

এছাড়াও প্রকৌশলী জামানুর রহমানের বিরুদ্ধে তরুণীকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগও রয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে রাজশাহী প্রেসক্লাব সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট চত্বরে যৌন হয়রানি ও ধর্ষণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

এত অভিযোগ ও অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার পরে বরখাস্ত করার পরেও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোঃ জামানুর রহমানকে নির্দোষ দেখিয়ে তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে স্বপদে বহাল করা হয়েছে। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের অনেক প্রকৌশলীও। তারা জানান উপরস্থ কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে জামানুর নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করে স্বপদে ফিরেছেন এবং এখন পদন্নোতিও পাওয়ার জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন।

এবিষয়ে জানতে চাইলে অ‌ভিযুক্ত জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলি মোঃ জামানুর রহমানকে একা‌ধিকবার মু‌ঠোফো‌নে যোগা‌যো‌গের চেষ্টা করা হ‌লে তি‌নি ফোন রি‌সিভ করেননি।

Development by: webnewsdesign.com