বিসিক-ড্যাফোডিল হস্তশিল্প মেলা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ও কারিগরদের একত্রিত করেছে

বৃহস্পতিবার, ০১ জুন ২০২৩ | 12 বার

বিসিক-ড্যাফোডিল হস্তশিল্প মেলা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ও কারিগরদের একত্রিত করেছে
ক্যাপশন : বিসিকের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. লুৎফর রহমান এবং ড্যাফোডিল পরিবারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান আয়োজিত ৫ দিনব্যাপী হস্তশিল্প মেলার উদ্বোধন শেষে স্টল পরিদর্শন করছেন। রাজধানীর ধানমন্ডির ড্যাফোডিল প্লাজায় বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ)

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ) আজ থেকে সোবহানবাগের ড্যাফোডিল প্লাজার নিচতলায় ০৫ দিনব্যাপী হস্তশিল্প মেলার আয়োজন করেছে। রাজধানীতে আজ সকালে সম্মানিত অতিথি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে এই মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিসিকের চেয়ারম্যান মুহ: মাহবুবুর রহমান। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল পরিবারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জনাব মোহাম্মদ নুরুজ্জামান।।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিসিক চেয়ারম্যান জনাব মুহঃ মাহবুবুর রহমান হস্তশিল্প মেলাকে একটি অনুকরণীয় অংশীদারিত্ব হিসেবে অভিহিত করে সরকারি ও বেসরকারি খাতের মধ্যে সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মতো একটি নেতৃস্থানীয়, বিশ্বমানের প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করেন এবং তথ্য প্রযুক্তির মতো ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভাবন এবং নতুন জ্ঞান লাভের জন্য ক্ষুদ্র, মাঝারি এবং কুটির শিল্প খাতকে উৎসাহিত করেন। তিনি বিশ্বব্যাপী চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে তাদের দক্ষতা ও প্রতিযোগিতা সক্ষমতা বাড়াতে বিসিকের সহায়তা অটুট রাখার আশ্বাস দেন।

অধ্যাপক ড. এম. লুৎফর রহমান সভাপতি হিসেবে তার বক্তৃতায় ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির ব্যবহারিক শিক্ষার প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন যা প্রথাগত শ্রেণীকক্ষের লেকচারের বাইরে চলে যায়। তিনি ডিআইইউ এবং বিসিকের মতো ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৯ (নয়) বছরের দীর্ঘ সহযোগিতার তাৎপর্যের ওপর জোর দেন, কারণ এটি ক্ষুদ্র, মাঝারি ও কুটির শিল্পের সামগ্রিক দক্ষতা ও সক্ষমতা বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্যভাবে অবদান রেখেছে। তিনি উদ্যোক্তা উন্নয়নের উপর ডিআইইউ-এর অনন্য চার বছরের স্নাতক সম্মান কোর্সের কথাও উল্লেখ করেন, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে উদ্যোক্তা দক্ষতা বৃদ্ধিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষতার উপর জোর দেয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রফেসর ড. মাসুম ইকবাল, ডিনসহ বিশিষ্ট অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ব্যবসা ও উদ্যোক্তা অনুষদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইনোভেশন সেন্টারের প্রকল্প পরিচালক আবু তাহের খান।

মেলায় সারাদেশের ২৫টি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা এবং কারিগরের অংশগ্রহণ রয়েছে, যেখানে সূচিশিল্প, জামদানি, বুটিকস, চামড়ার হস্তশিল্প, বিভিন্ন হস্তশিল্প এবং মধুর মতো বিভিন্ন পণ্যের প্রদর্শনী রয়েছে। জনসাধারণ ০৫ জুন পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা পরিদর্শন করার এবং প্রদর্শনে কারুশিল্প এবং সৃজনশীলতা অন্বেষণ করার সুযোগ পাবে।

Development by: webnewsdesign.com